Home / আজকের যমুনা প্রবাহ / ব্যাঙ্গালোরকে ৯৭ রানে হারালো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব

ব্যাঙ্গালোরকে ৯৭ রানে হারালো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব

রাহুলের ক্যাচ মিসের পর হতাশ কোহলি ও টুর্ণামেন্টের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান লোকেশ রাহুল

খেলাধুলা ডেস্ক যমুনাপ্রবাহ.কম

সিরাজগঞ্জ: বিরাট কোহালির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরকে দুমড়ে মুচড়ে দিল লোকেশ রাহুলের কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। ৯৭ রানে ম্যাচ হারার লজ্জায় মুখ ঢাকতে হল ব্যাঙ্গালোর অধিনায়ককে।  গোটা ম্যাচে কিছুই ঠিকঠাক হল না কোহালিদের। বিধ্বংসী মেজাজে ধরা দিলেন রাহুল। তাঁর ৬৯ বলে বিধ্বংসী ১৩২ রানে পঞ্জাব ২০৬ রানের পাহাড়ে চড়ে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ব্যাঙ্গালোরের ইনিংস শেষ হয়ে যায় ১০৯ রানে। আরও লজ্জার ব্যাপার হল, রাহুলের ব্যক্তিগত ১৩২ রানও টপকাতে পারল না কোহালি-এবি ডিভিলিয়ার্স-অ্যারন ফিঞ্চ সমৃদ্ধ দুরন্ত ব্যাটিং লাইন আপ।

কাগজে কলমে দারুণ শক্তিশালী ব্যাটিং ব্যাঙ্গালোরের। কিন্তু সেই দলকেই চার বছর আগে ৪৯ রানে ইডেন গার্ডেন্সে মুড়িয়ে দিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। এ বারের আইপিএলে ব্যাঙ্গালোরের আত্মবিশ্বাস চূর্ণ বিচূর্ণ করে দিল পঞ্জাব। এই হারের শোক ভুলে পরের ম্যাচগুলোয় ঘুরে দাঁড়ানোই এখন কোহালিদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ।

গত ম্যাচের পারফরম্যান্স ভুলে বিরাট কোহালির ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে বিধ্বংসী ফর্মে ফিরলেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। ৬৯ বলে বিধ্বংসী ১৩২ রান করলেন তিনি। ২০ তম ওভারের শেষ বলটিও উড়ে গেল গ্যালারিতে।

কোহালির দলের বিরুদ্ধে ১৩২ রান করার পথে রাহুল অবশ্য দু’বার জীবন পেয়েছেন। দু’বারই তাঁর ক্যাচ ফেলেছেন কোহালি স্বয়ং। একবার ৮৩ রানে। দ্বিতীয়বার ৮৯ রানে।জীবন পাওয়ার পরে আর ফিরে তাকাতে হয়নি ভারতীয় দলে কোহালির সতীর্থকে। ইনিংসের শেষ ৩টি ওভারে ৬০ রান নেন রাহুল। তাঁর দুরন্ত ব্যাটিংয়ের জন্যই পঞ্জাব ২০ ওভারে করে ৩ উইকেটে ২০৬ রান।

বিপক্ষে ডেল স্টেন, উমেশ যাদব, নবদীপ সাইনির মতো জোরে বোলার। ওপেন করতে নেমে শুরুতে ইনিংস গোছান রাহুল। শুরুর দিকে বড় শট খেলার দিকে ঝোঁকেননি। ক্রিজে হনিমুন পিরিয়ড কাটিয়ে ওঠার পরেই রাহুল স্বমূর্তি ধরেন। ইনিংস যত গড়াতে থাকে, ততই পঞ্জাব অধিনায়কের ব্যাট ঝলসাতে থাকে। ব্যাঙ্গালোরের বোলারদের নিয়ে কার্যত ছেলেখেলা করেছেন রাহুল। হতে পারে টি ২০ ক্রিকেট। তা বলে একটিও অক্রিকেটীয় শট খেলেননি তিনি। প্রতিটি শটের পিছনেই ছিল ক্রিকেট। পরিভাষায়, সমস্তই ‘ক্লিন হিট’। জীবন ফিরে পাওয়ার পরে গিয়ার আরও চড়িয়ে দেন রাহুল। দেখে মনে হয়েছে, স্টেন-সাইনিরা কোথায় বল ফেলবেন, সেটাই ধরতে পারেননি। কখনও শর্ট বল করে, কখনও গতি কমিয়ে স্লোয়ার দিয়ে চেষ্টা করেছেন। কিন্তু রাহুলকে দমানো যায়নি। প্রসঙ্গত, এই আইপিএলে প্রথম সেঞ্চুরি এল রাহুলের ব্যাট থেকেই।

সূত্র: আনন্দবাজার

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

পূণ: নির্বাচনে নিহত কাউন্সিলর তরিকুলের স্ত্রীর বিপুল বিজয়

নিজস্ব প্রতিবেদক যমুনাপ্রবাহ.কম সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জ পৌরসভার নিহত ৬ নং ওয়ার্ডের পূণ: নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *