শনিবার , জুলাই 31 2021
Home / গুরুত্বপূর্ণ / জেলা ব্র্যান্ডিং এর “তাঁতকুঞ্জ সিরাজগঞ্জ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

জেলা ব্র্যান্ডিং এর “তাঁতকুঞ্জ সিরাজগঞ্জ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক।। যমুনাপ্রবাহ.কম

সিরাজগঞ্জ : বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে রূপকল্প-২০২১ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে এ দেশকে একটি সুখি ও সমৃদ্ধ দেশে রূপান্তরের জন্য রূপকল্প-২০৪১ প্রণয়ন করেছে।

এই রূপকল্পসমূহ বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজন দ্রুত এবং ধারাবাহিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি। এই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনকে ত্বরান্বিত করতে প্রয়োজন সমন্বিত প্রচেষ্টা। বাংলাদেশের প্রতিটি জেলাই বিভিন্নভাবে স্বাতন্ত্র্যমণ্ডিত ও অর্থনৈতিকভাবে সম্ভাবনাময়।

সিরাজগঞ্জ তার ব্যতিক্রম নয়। এ-জেলার একটি অত্যন্ত সম্ভাবনাময় পণ্য হলো-তাঁত। যথাযথ পরিকল্পনা ও অবকাঠামোগত সীমাবদ্ধতার কারণে এই শিল্পটির আশানুরূপভাবে বিকাশ লাভ করেনি।

জেলা-ব্র্যান্ডিংয়ের আওতায় “তাঁতকুঞ্জ সিরাজগঞ্জ” এই ব্রান্ডিং মাধ্যমে তাঁত শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার পাশাপাশি জেলার ইতিবাচক ভাবমূর্তি বিনির্মাণের মাধ্যমে দেশকে আন্তর্জাতিক বিশ্বে পরিচিত করানোর সুযোগ ঘটে।

এরই ধারাবাহিকতায় সিরাজগঞ্জের জেলা ব্র‍্যান্ডিং হচ্ছে তাঁত। “তাঁতকুঞ্জ সিরাজগঞ্জ”স্লোগানকে সামনে নিয়ে সিরাজগঞ্জের তাঁতকে সারা বাংলাদেশ ও বিশ্বের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য জেলা ব্যান্ডিংকে আরো ত্বরান্বিত করার জন্য। মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের পরিচালনায় এবং এটু আই এর সহযোগিতায় সারা বাংলাদেশে জেলা ব্যান্ডিং এর কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

মঙ্গলবার (২২জুন) সকাল ৯টায় দেশের প্রথম জেলা হিসেবে সিরাজগঞ্জে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। জেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ সহ শাহজাদপুরের একটি বিশেষ টিম উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় দিনব্যাপী এই অনলাইন প্রশিক্ষণ কর্মশালা যুক্ত ছিল।

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক ড.ফারুক আহাম্মদের সভাপতিত্বে এই কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন এটুআই এর প্রকল্প পরিচালক ড. মো.আব্দুল মান্নান।

তিনি বলেন, ই-কমার্স প্লাটফর্মে ছাত্র শিক্ষক, রাজনৈতিক, সুশীলসমাজের ব্যক্তিসহ সব শ্রেণীর মানুষকে যুক্ত করতে হবে, আর যে পণ্য নিয়েই কাজ করেন। সেই পণ্য নিয়েই আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে এরপরেও যদি কারো সমস্যা হয় জেলা ব্র‍্যান্ডিং টিম আছে তাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা বিষয়গুলো সমাধান করে দিবে। আর জেলা প্রশাসকের সহযোগীতায় এটা দ্রুত বিস্তার লাভ করবে। চলতি বছরেই জেলা ব্র‍্যান্ডিং এর প্রসারের জন্য টাকা পাঠানো হবে। যে ব্র‍্যান্ডিং এর কাজগুলো হচ্ছে, সেগুলো যেন প্রসার করা যায়, সেই সাথে লোগো থিম তৈরা করা ও ই-কর্মাস প্ল্যাটফর্ম যে আছে সেগুলোতে যেন দক্ষতা অর্জন করা যায়, সে বিষয়ে আমাদের জেলা ব্র‍্যান্ডিং টিম সাহায্য করবেন এবং আমাদের পক্ষ থেকে ও আপনাদের সব ধরনের সাহায্য করা হবে।

এটুআই এর উপ সচিব ও কনসালটেন্ট মোহাম্মদ শামছুজ্জামান বলেন, ২০১৭ সাল থেকে জেলা ব্র‍্যান্ডিং এর কাজ শুরু করেছি। সিরাজগঞ্জের তাঁতপল্লী দেশের অন্যতম। তাঁতের উপরে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সিরাজগঞ্জের তাঁত নিয়ে কিভাবে বিশ্বের কাছে তুলে ধরা যায় সে বিষয়ে আমরা কাজ করবো।

যুগ্ম-সচিব, মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ ও যুগ্মপ্রকল্প পরিচালক এটুআই এর ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর বলেন, জেলার অর্থনৈতিক, সামাজিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি, জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির লালন ও বিকাশ, জেলার সর্বস্তরের মানুষকে উন্নয়নের অভিযাত্রায় সম্পৃক্ত করার চেষ্টা করবো। সেই সাথে সামগ্রিকভাবে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখা যায় সে বিষয়গুলো খেয়াল করে আমাদের কাজ করতে হবে।

হেড অব ই-কমার্স, এক শপ, এটু আই, রেজুয়ানুল হক জামি বলেন, সহজে ও দ্রুত সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রেতার দোরগোড়ায় পৌঁছে একশপ, এসএমই সহ যে প্লাটফর্মগুলো আছে সেগুলো আপনাদের সাথে থেকে কাজ করে যাবে। গ্রামীণ উৎপাদনকারীর পণ্য ই-কমার্স সাইটে রাখা যাবে এবং বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে গ্রামীণ পণ্য কেনা যাবে। এসব বিষয়ে আমরা আপনাদেরকে সহযোগীতা করবো।

সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (আইসিটি শাখা) মো. মাসুদুর রহমান বলেন,

জেলায় তাঁতী পরিবারের সংখ্যা প্রায় ৪৬,৪০৩, তাঁত কারখানা প্রায় ১৪,৮৪৯ টি এবং তাঁত সংখ্যা প্রায় ৪,০৫,৬৭৯ টি। প্রতিবছর এ জেলায় তাঁত থেকে প্রায় ২০.৬৯ কোটি মিটার বস্ত্র উৎপাদিত হয়ে থাকে। এছাড়া এ শিল্প সিরাজগঞ্জ জেলায় প্রায় ২,০৮,১৫৬ জন লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

উপ সচিব ও স্পেশালিষ্ট এটুআই এর দৌলতুজ্জামান খান বলেন, জেলার চলমান উদ্যোগ এবং সম্ভাবনাসমূহকে বিকশিত করার মাধ্যমে জেলার সার্বিক উন্নয়ন ঘটানো এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পরিসরে জেলাকে তুলে ধরা জেলা ব্র্যান্ডিংয়ের মূল উদ্দেশ্য আর আমাদের টিম আন্তরিকভাবে কাজ করবে।

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ বলেন, বাংলাদেশের প্রত্যেকটি জেলার স্বাতন্ত্র্য এবং সম্ভাবনাকে বিকশিত করার লক্ষ্যে জেলা-ব্র্যান্ডিংয়ের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। জেলা ব্র‍্যান্ডিং এর সাথে যারা তারা আন্তরিকভাবে কাজ করছেন। আর জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

এছাড়া যুক্ত ছিলেন, যুগ্ম প্রকল্প পরিচালক (যুগ্ম সচিব) এটু আই সেলিনা পারভেজ, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি হেলাল উদ্দিন, ইউডিসি উউদ্যোক্তা ও তাঁত বোর্ডের সদস্যরা সহ প্রমুখ।

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

বেলকুচিতে বায়াতুস সালাত জামে  মসজিদের উদ্বোধন

জহুরুল ইসলাম, উপজেলা প্রতিনিধি || যমুনাপ্রবাহ.কম বেলকুচি : সিরাজগঞ্জের বেলকুচি পৌর এলাকার শেরনগর পশ্চিম পাড়া বায়াতুস …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।