সদ্য সংবাদ
Home / গুরুত্বপূর্ণ / সিদ্ধান্ত ছাড়াই মূলতবি সিন্ডিকেট সভা, অনশনে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা

সিদ্ধান্ত ছাড়াই মূলতবি সিন্ডিকেট সভা, অনশনে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ

যমুনাপ্রবাহ.কম: ১৪ ছাত্রের চুল কাটার ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা হলেও কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হলো রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের সিন্ডিকেট সভা। ফলে আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে স্থায়ী বহিস্কারের দাবীতে ফের অনশনে বসেছে শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাত থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশন শুরু করেছে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) সকালে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মূখপাত্র নাজমুল হাসান পাপন যমুনাপ্রবাহ.কমকে জানান, শুক্রবার বিকেলে সিন্ডিকেট সভা শুরু হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শেষ হয়। সভার বিষয়ে আমরা ট্রেজারার (ভারপ্রাপ্ত ভিসি) স্যারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে কবে নাগাদ সভা হবে সেটা নির্দিষ্ট করে জানাননি তিনি। বাধ্য হয়ে আমরা শিক্ষার্থীরা শুক্রবার রাতেই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের সামনে আমরণ অনশনে বসেছি। শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে স্থায়ী বহিস্কার করা না পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার (উপাচার্য’র অতিরিক্ত দায়িত্ব) আব্দুল লতিফ  জানান, সিন্ডিকেট মিটিং সিদ্ধান্ত মূলতবি করা হয়েছে। কিছু তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ বাকী রয়েছে। খুব শীঘ্রই ফের সিন্ডিকেট সভা বসবে এবং ও আইনী প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যার দিকে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার সোহরাব আলীর কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকেল ৪টার দিকে সিন্ডিকেট মিটিংয়ে তদন্ত প্রতিবেদন খোলা হয়।

উল্লেখ্য ২৬ সেপ্টেম্বর রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের ১৪ শিক্ষার্থীর মাথার চুল কেটে দেন বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারি প্রক্টর ফারহানা ইয়াসমিন। অপমান সহ্য করতে না পেরে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাতে নাজমুল হাসান তুহিন এক ছাত্র অতিমাত্রায় ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা সকল পরীক্ষা বর্জন করে একাডেমিক এবং প্রশাসনিক ভবনে তাল ঝুলিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ করে। ওইদিন রাতেই  বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান, সহকারি প্রক্টর ও সিন্ডিকেট সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করেন ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন। ঘটনার তদন্তে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়।

এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ৩০ সেপ্টেম্বর রাতে সিন্ডিকেট মিটিং শেষে শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে সাময়িক বরখাস্ত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু স্থায়ী বহিস্কারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলতেই থাকে। এক পর্যায়ে শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে আন্দোলন থেকে সরে আনের শিক্ষার্থীরা। 

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

কাজিপুরে আ.লীগ নেতা শহীদ সরোয়ারের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন-বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ যমুনাপ্রবাহ.কম: সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদ সরোয়ারের উপর সন্ত্রাসী হামলার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *