সদ্য সংবাদ
Home / রাজনীতি / আওয়ামীলীগ / সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ সেলিমের ৭৫তম জন্মদিন আজ

সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ সেলিমের ৭৫তম জন্মদিন আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক || যমুনাপ্রবাহ.কম

প্রকাশ কাল: ১৩২৬ ঘন্টা, জুন ১৯, ২০২১

সিরাজগঞ্জ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর জাতীয় নেতা শহীদ এম মনসুর আলীর জ্যৈষ্ঠ পূত্র বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ সেলিমের ৭৫তম জন্ম দিন শনিবার (১৯ জুন)। ১৯৪৬ সালের আজকের এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

সিরাজগঞ্জের এই ‍কৃতি রাজনীতিবিদ ১৯৯৬ সালের উপ-নির্বাচনে সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯৮ সালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন।

ড. মোহাম্মদ সেলিমের স্কুলজীবন শুরু হয় পাবনায়। বাবা এম মনসুর আলী পাবনা জজ আদালতের আইনজীবী হওয়ায় সেলিমকে পাবনার জুবিলি স্কুলে শিক্ষাজীবন শুরু করতে হয়। ১৯৬২ সালে তিনি রাধানগর হাইস্কুল থেকে ম্যাট্রিকুলেশন এবং ১৯৬৪ সালে পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে আইএ পাস করেন। অতঃপর ১৯৬৬ সালে ঢাকা কলেজ থেকে বিএ পাস করেন। তিনি ১৯৬৯ সালে এলএলবি ডিগ্রি লাভ করার পরে ১৯৭০ সালে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৭৩ সালে বার অ্যাট ল ডিগ্রি লাভ করেন। সেলিম ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত হন। পরে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে কাজীপুরে বাবার নির্বাচনী কার্যকলাপ পরিচালনা করেন। ১৯৭৩ সালের সেপ্টেম্বরে তিনি লন্ডনে চলে যান। ১৯৭৭-৭৮ সালে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করেন এবং সর্ব ইউরোপীয় বঙ্গবন্ধু পরিষদ গঠন করেন। যুক্তরাজ্যের প্রাক্তন এমপি স্যার টমাস উইলিয়াম যিনি বঙ্গবন্ধুর আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার কৌঁসুলি ছিলেন তিনি এই সংগঠনের সভাপতি এবং ড. সেলিম ছিলেন সেক্রেটারি। ইংল্যাল্ডসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এর শাখা গঠন করা হয়। এই সংগঠন বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় কন্যা শেখ রেহানাকে নিয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করে। সে সময় দিল্লিতে অবস্থানরত বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে লন্ডনে নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।
১৯৮০ সালে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উদ্যোগে লন্ডনের বিখ্যাত ইয়র্ক হলে শেখ হাসিনাকে প্রধান অতিথি করে প্রথম সভার আয়োজন করা হয়। এখানকার এই বিশাল সমাবেশে শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু, তার পরিবার, চার জাতীয় চার নেতা হত্যার বিচারের দাবি উত্থাপন করেন। এরপর থেকে ইংল্যান্ডের বড় বড় শহরে শেখ হাসিনাকে নিয়ে সভা সমাবেশ শুরু হয় যায়।
ওই সময় শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার উদ্যোগে ড. সেলিম ও আশরাফুল ইসলামের নেতৃত্ব বঙ্গবন্ধু হত্যার তদন্ত কমিশন গঠন করা হয়। সেই তদন্ত কমিশনের মাধ্যমে বাংলাদেশে তদন্ত কার্য পরিচালনার জন্য কৌঁসুলি পাঠানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তকালীন জিয়া সরকার কৌঁসুলি পাঠানোর অনুমতি দেয়নি।
পরে শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর দায়িত্ব দিয়ে দেশে নিয়ে আসা হয় এবং ড. সেলিম বিদেশে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। ১৯৯০ সালে ড. সেলিম দেশে ফিরে আসেন। দেশে এসে শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের সঙ্গে কাজ করতে থাকেন। ১৯৯৩ সালে আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অধিবেশনে প্রেসিডিয়াম সদস্য মনোনীত হন। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনাকে চেয়ারপারসন করে যে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি করা হয় সেই কমিটিতে ড. সেলিম ছিলেন সদস্য সচিব। সেই নির্বাচনে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিরোধ করে ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়ে পুনরায় সরকার গঠন করে। সরকার গঠনের পর সিরাজগঞ্জ-১ (কাজীপুর) আসন থেকে উপ-নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ড. সেলিম। ১৯৯৮ সালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১৫ সালের ২২ জানুয়ারি ড. মোহাম্মদ সেলিম ৬৮ বছর বয়সে লন্ডনে চিকিসাধীন অবস্থায় মারা যান।

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

মা ইলিশ ধরার দায়ে ১৬ জেলের কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ যমুনাপ্রবাহ.কম : সিরাজগঞ্জের তিনটি উপজেলায় যমুনা নদীতে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে ১৬ জেলেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *