সদ্য সংবাদ
Home / গুরুত্বপূর্ণ / রায়গঞ্জে পরিকল্পিত হত্যাকান্ডকে আত্মহত্যায় রূপদানের অভিযোগ

রায়গঞ্জে পরিকল্পিত হত্যাকান্ডকে আত্মহত্যায় রূপদানের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ

যমুনাপ্রবাহ.কম: সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে সবজি বিক্রেতা নিজাম উদ্দিন হত্যাকান্ডকে পরিকল্পিতভাবে আত্মহত্যায় রূপদানের অভিযোগ উঠেছে। ময়নাতদন্তে ভূল প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে দাবী করে নিহতের স্বজনেরা অভিযোগ করেন টাকার বিনিময়ে হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়া হয়েছে। এদিকে এ হত্যাকান্ডের বিচার দাবী ও ভূল ময়নাতদন্ত রিপোর্ট দেয়ার প্রতিবাদে স্থানীয়রা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে।  

সোমবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরের দিকে উপজেলার বেতুয়া এলাকায় আঞ্চলিক সড়কে শতাধিক নারী পুরুষ এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। এ সময় বক্তারা বলেন, জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে নিজের ভাই-ভাতিজাদের হাতে হত্যাকান্ডের স্বীকার হন সবজি বিক্রেতা নিজাম উদ্দিন। তাকে মারপিটের পর ঘাড় ভেঙ্গে হত্যা করা হয়। পরে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রেখে এটাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা চলে। আর ময়নাতদন্তে রিপোর্টেও আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিয়ে মামলাটিকে ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টা চলছে। অবিলম্বে এ হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবী জানান বক্তারা।

নিহতের স্ত্রী মাজেদা খাতুন বলেন, আমার স্বামী নিজাম উদ্দিন শেখের সাথে তার ভাই দবির উদ্দিন সেখ ও মেজবার সেখের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। আদালতে মামলাও চলছিল। এ কারণে দবির উদ্দিন শেখ ও মেজবার শেখ এবং তাদের ছেলেরা একাধিকবার আমার স্বামীকে হত্যার হুমকি দেয়। আমার স্বামীর উপর মাসুদ, রেজাউল, রাকিবসহ ওই পরিবারের সদস্যরা হামলাও করে। গত ২৮ জুন জমির মামলার কাজে কোর্টে যান নিজাম উদ্দিন। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি। পরদিন ২৯ জুন সকালে বেতুয়া গ্রামে একটি ছোট্ট গাছের সাথে ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া যায়।

মওলানা আব্দুস সালাম বলেন, ঘটনার ২০/২৫ দিন আগেও প্রতিপক্ষের রেজাউল বাটাম দিয়ে আঘাত করেছিল নিজাম উদ্দিনকে। এ নিয়ে শালিসী বৈঠকও হয়েছে। 

বেতুয়া গ্রামের আনিসুর রহমান নামে এক ব্যক্তি বলেন, আমি নিহত নিজামের মরদেহ গোসল করিয়েছি। তার ঘাড়ের হাড় ভাঙ্গা ছিল। পাজরে আর পায়ে আঘাতের চিহ্ন ছিল। এটা আত্মহত্যার ঘটনা হতেই পারে না।

কলেজ ছাত্র ওমর ফারুক বলেন, গ্রামের সবাই বিশ^াস করে এটি হত্যাকান্ড। অথচ ডাক্তাররা সেটাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা করেছে। আমরা এই হত্যাকান্ডের বিচার দাবী করছি।

নিহতের ছেলে আব্দুল মজিদ বলেন, ঘটনার আগের দিনও তারা আমার বাবাকে হত্যার হুমকি দিয়েছিল। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখে আমার চাচা ও চাচাতো ভাইয়েরা। আর ময়নাতদন্ত রিপোর্টে টাকার বিনিময়ে হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিয়েছে ডাক্তাররা। আসামীদের সাথে যোগসাজসে এ ময়নাদন্ত রিপোর্ট করা হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. ফয়সাল আহমেদ বলেন, আদালতের নির্দেশে নিহতের মরদেহ কবর থেকে পূণ: উত্তোলন করে ভিসেরা রিপোর্টের জন্য রাজশাহী সিআইডিতে পাঠানো হয়েছে। ভিসেরা রিপোর্টেই প্রমাণ হবে এটি হত্যাকান্ড নাকি আত্মহত্যা।

উল্লেখ্য গত ২৯ জুন বেতুয়া গ্রামের একটি গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় নিজাম উদ্দিন শেখের (৫২) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এটিকে হত্যাকান্ড দাবী করে নিহতের ছেলে আব্দুল মজিদ বাদী হয়ে তার চাচা ও চাচাতো ভাইসহ ১৩ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন। এদিকে ময়নাতদন্ত রিপোর্টে এটিকে আত্মহত্যা উল্লেখ করা হয়। গত ২৬ সেপ্টেম্বর পূণ: ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ উত্তোলনের জন্য আদালতে আবেদন করেন বাদী আব্দুল মজিদ। আদালতের নির্দেশে গত ৭ অক্টোবর মরদেহ উত্তোলন করে পূণ: ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

কাজিপুরে আ.লীগ নেতা শহীদ সরোয়ারের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন-বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ যমুনাপ্রবাহ.কম: সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহীদ সরোয়ারের উপর সন্ত্রাসী হামলার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *