সদ্য সংবাদ
Home / গুরুত্বপূর্ণ / নির্মাণের আড়াই মাসেই ধসে গেল ৮৫ লাখ টাকার সড়ক !

নির্মাণের আড়াই মাসেই ধসে গেল ৮৫ লাখ টাকার সড়ক !

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ:

সড়কের পুকুরে ধসে যাওয়া অংশ।

যমুনাপ্রবাহ.কম: নির্মাণের আড়াই মাস না যেতেই সিরাজগঞ্জের তাড়াশের একটি পাকা সড়ক পুকুরে ধসে পড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সম্প্রতি ভারি বর্ষণে উপজেলার মাগুরা বিনোদ ইউনিয়নের ঘরগ্রাম পূর্বপাড়া এলাকায় ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১১৫০ মিটার সড়কের পাকা অন্তত ৫০ মিটার অংশ পুকুরে ধসে যায়। এতে সড়কটি দিয়ে মাঝারি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। ফলে কোন কাজে আসছে না এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নের এ সড়কটি।

স্থানীয়রা জানান, ঘরগ্রামসহ আশপাশের ৪/৫ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষের চলাচলের এ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে কাঁচা ছিল। বর্ষা মৌসুম কাঁদা-পানি মাড়িয়ে মানুষকে চলাচল করতে হতো। বন্যার সময় তো নৌকা বা কোমর পানিতে হেঁটে চলতে হতো। কৃষি সমৃদ্ধ এলাকার উৎপাদিত ফসল হাটে-বাজারে সরবরাহ ছিল একেবারেই দুস্কর। এ কারণে প্রায় অর্ধশত বছর ধরে এ সড়কটি পাকাকেরণের দাবী জানিয়ে আসছিল গ্রামবাসীরা। জনপ্রতিনিধিরা বারবার আশ্বাস দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ১ হাজার ১৫০ কিলোমিটার সড়কটি পাকাকরণ করা হয়। গত জুন মাসের শেষ দিকে রাস্তাটি নির্মাণ সম্পন্ন হয়।

এদিকে গত আগষ্টের শেষ থেকে চলতি সেপ্টেম্বর প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত ভারী বর্ষণ হয়। এতে রাস্তাটির ঘরগ্রাম পূর্বপাড়া এলাকায় রাস্তার ৫০ মিটার  ধসে একটি পুকুরে পড়ে যায়। এছাড়াও বেশ কিছু অংশে ধসে ছোট ছোট ধস দেখা দিয়েছে। এতে করে  তিন চাকার কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছে না সড়কটি দিয়ে।  

এলাকাবাসীর অভিযোগ, একদিকে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। অপরদিকে এছাড়াও পুকুরের পাশে কোন গাইড ওয়ালের পরিবর্তে নামমাত্র কয়েকটি খুঁটি দিয়ে কার্পেটিং করায় বৃষ্টিতে ধসে গেছে সড়কটি।

তাড়াশ উপজেলা প্রকৌশলী অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৮৫ লাখেরও বেশি টাকা ব্যয়ে ধরে ১ হাজার ১৫০ মিটার রাস্তাটির কাজ পায় তন্ময় এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ২০২০ সালের ১৫ মে কাজ শুরু হয়ে চলতি বছরের ৩০ জুন রাস্তার কাজ শেষ হয়।

তাড়াশ উপজেলা প্রকৌশলী মো. আবু সায়েদ বলেন, ‘গত জুন মাসে এ সড়কটির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগষ্টের শেষ দিকেভারি বর্ষণ হওয়ায় একটি অংশ ধসে গেছে। এর আগে রাস্তাটিতে নিম্নমানের সামগ্রী দেওয়ায় এবং কিছু অনিয়ম হওয়ায় আমরা মাঝখানে কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলাম। পরে কাজ শেষ করা হয়। তবে ধসে পড়া জায়গা বর্ষা শেষে মেরামত করে দেওয়া হবে।’

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তন্ময় এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী এম এ আল বাকি বলেন, ‘বর্ষা মৌসুমের কারণে রাস্তাটি ধসে গেছে। আমার জামানত এখনো আছে। বর্ষার পর রাস্তাটি আবার সংস্কার করে দেব।’

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের সিরাজগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, ‘সড়কটির বিষয়ে আমি জানি। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তন্ময় এন্টারপ্রাইজকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। যেহেতু এখন মাটি পাওয়া যাচ্ছে না। তাই বর্ষার পরে রাস্তাটি সংস্কার করে দেওয়া হবে।

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

সিরাজগঞ্জে অস্ত্র-গুলিসহ শীর্ষ ছিনতাইকারি গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ যমুনাপ্রবাহ.কম: সিরাজগঞ্জে ছিনতাই, বিস্ফোরক আইনসহ বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের করা একাধিক মামলার আসামী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *