সদ্য সংবাদ
Home / গুরুত্বপূর্ণ / চৌহালীর পূর্বাংশকে টাঙ্গাইলে অর্ন্তভুক্ত পায়তারার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ

চৌহালীর পূর্বাংশকে টাঙ্গাইলে অর্ন্তভুক্ত পায়তারার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ

চৌহালী প্রতিনিধি, যমুনাপ্রবাহ.কম

নদীভাঙনে এলাকা বিলীনের অজুহাতে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার পূর্বাংশকে টাঙ্গাইল সদর ও নাগরপুরে অন্তর্ভুক্ত করার পায়তারার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে বাঘুটিয়া ইউনিয়নের যমুনা নদীর মিটুয়ানী সেতুর পাশে নৌকায় ভাসমান প্রতিবাদ সভা করে চৌহালী নদী ভাঙন রোধ আন্দোলন কমিটি। এ সময় সংগঠনের সভাপতি আল ইমরান মনু বক্তব্য রাখেন। এছাড়া সাবেক ইউপি সদস্য শুকুর মাহমুদ, আ’লীগ নেতা দ্বীন মোহাম্মদ, শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, সমাজ সেবক সাচ্চা মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, চৌহালী উপজেলার প্রায় ৭০ ভাগ এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার সুবাদে একটি কুচক্রী মহল ঐতিহ্যবাহী বাঘুটিয়া, খাষপুখুরিয়া, খাষকাউলিয়া, ঘোড়জান ও উমারপুর ইউনিয়নকে নিয়ে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা এই ইউনিয়ন গুলিকে পার্শ্ববর্তী জেলা টাঙ্গাইল সদর ও নাগরপুর উপজেলার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করার পায়তারা করছে। যা নিয়ে ইতোমধ্যে একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করে ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল বির্তক ও সমালোচনা হচ্ছে। এ ঘটনায় ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। তারা আরও জানান, চৌহালী উপজেলার মানুষ নিজেদের পরিচয় হাড়াতে চায় না, তারা নিজস্ব ইতিহাস ঐতিহ্য নিয়ে বাঁচতে চায়। তাই যারা আমাদেরকে নিয়ে চক্রান্ত করবে, তাদের ছাড় দেয়া হবে না বলে হুসিয়ারি দেয়া হয়। এছাড়া চৌহালীর উপজেলার ভূমি উদ্ধারসহ দক্ষিনাঞ্চলে স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফসানা ইয়াসমিন জানান, চৌহালীর দক্ষিনাঞ্চলে প্রতিবাদ সমাবেশের কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি। তবে চৌহালীর কোন অংশ অন্য উপজেলায় অর্ন্তভুক্তি সংক্রান্ত অফিসিয়ালি কোন তথ্য আমার কাছে নেই।

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

রাধা না বোলে না বোলে রে | আজাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *