বৃহস্পতিবার , জুন 17 2021
সদ্য সংবাদ
Home / সিরাজগঞ্জ / উল্লাপাড়া / ক্যাপসুলে বিষাক্ত কেমিক্যাল : হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজের ৮ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

ক্যাপসুলে বিষাক্ত কেমিক্যাল : হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজের ৮ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

রাজু আহমেদ সাহান || যমুনাপ্রবাহ.কম

প্রকাশ কাল: ১৫৪২ ঘন্টা, ০৭ জুন, ২০২১

উল্লাপাড়া: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার একটি বেসরকারি ঔষধ কোম্পানি হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজ লিঃ এর বিরুদ্ধে জীবন বিধ্বংসী হারবাল ঔষধ তৈরি ও পরীক্ষা ছাড়াই মানব দেহে প্রয়োগের অপরাধে উল্লাপাড়া মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় নীলা আক্তার নামের এক মহিলা বাদী হয়ে ৮ জন কর্মকর্তাকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করেন। মামলার বাদী নীলা আক্তারের অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উল্লাপাড়া পৌরসভায় অবস্থিত হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজ লিঃ কোম্পানিতে ওয়ার্কার পদে চাকুরি করে আসছিল নীলা। কোম্পানির মালিক ডায়াবেটিক রোগের জন্য নতুন উপাদিত ডাইজিক কেয়ার নামে একটি ঔষধ উপাদন করতে চলেছেন। ডাইজিক কেয়ার নামের উপাদিত ঔষধের (ক্যাপসুল) কিছু স্যাম্পল কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ম্যানেজিং ডিরেক্টরের নির্দেশে হেকিম আলামিন ওয়ার্কার নীলাকে প্রদান করেন এবং বিভিন্ন ডায়াবেটিক রোগিদের মধ্যে বিতরণ ও প্রয়োগ করে ফলাফল জানানোর নির্দেশ দেন। তিনি সরল মনে উপাদিত ঔষধ গ্রহন করে তার বাড়ী কয়ড়া নিয়ে যান। নীলার স্বামী নাজমুল হুদা ও শ্বশুর আসাব আলী তারা উভয়ে ডায়াবেটিক রোগী হওয়ায় তাদের দু’জনকেই উক্ত ঔষধ সেবন করান। সেবনের কিছু সময় পড়েই তার স্বামী ও শ্বশুর উভয়েই গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়ার পথে তারা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে চিকিসকের পরামর্শে স্বামী ও শ্বশুরকে নিয়ে নীলা বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিসকের নিবির পরিচর্চায় ৪৮ ঘন্টা পর উভয়ে জ্ঞান ফিরে পান। পরীক্ষা করে তাদের শরীরে জীবন বিধ্বংসী ডিএম, এইচটিএন, হারবাল পয়জন শনাক্ত করেন চিকিসকরা। বর্তমানে অসুস্থ অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। এই কোম্পানীর বিরুদ্ধে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট প্রস্তুত করে বাজারে বিপননের মাধ্যমে যুব সমাজকে ধ্বংসের অভিযোগ রয়েছে।
উল্লাপাড়ার হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজ লিঃ এর নতুন উপাদিত ডাইজিক কেয়ার নামের ক্যাপসুল খেয়ে অসুস্থ হওয়া রোগির শরীরে জীবন বিধ্বংসী পয়জন শনাক্ত হওয়ার অপরাধে বাদী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ৮ জন কর্মকর্তাকে আসামী করে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছেন উল্লাপাড়া মডেল থানায়। অভিযুক্ত আসামীরা হলেন- হামিম ইউনানী ল্যাবরেটরিজ লিঃ ঐষধ প্রস্ততকারী কোম্পানির ম্যানেজিং ডিরেক্টর আব্দুল গণি মন্ডল (৫৮), হেকিম মোঃ আলামিন (৪০), ম্যানেজার মোঃ আজিম (৩৫), পরীক্ষক মোঃ মাসুম (৩৬), মেশিন অপারেটর শিবলী মন্ডল (৩৭), সহকারি ম্যানেজিং ডিরেক্টর জাহাঙ্গীর (৪৫), মোঃ সুমন মন্ডল (৪০), কোম্পানির তত্ত¡াবধায়ক মোছাঃ রোজিনা বেগম। উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলা তদন্তকারি কর্মকর্তা গাজীউল হক জানান, ঔষধ কোম্পানিটির বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় বর্তমানে কোম্পানিটি বন্ধ রেখে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

 

About jamuna

আবার চেষ্টা করুন

বেলকুচিতে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও, কনের বাবার জরিমানা 

নিজস্ব প্রতিবেদক || যমুনাপ্রবাহ.কম প্রকাশ কাল: ২২৫৩ ঘন্টা, জুন  ১৬, ২০২১ সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।